হযরত মখদুম শাহদৌলা(রহ:) মাজার ও মসজিদ

 লিখেছেনঃ
  নভে. 28, 2019
  923 Views
0 0

টুকিটাকি

প্রায় ৭০০ বছর আগে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে ইসলাম প্রচারে আসেন ইয়ামিনের শাহজাদা হযরত মখদুম শাহদৌলা শহীদ ইয়ামিনি( রহ:)। তার প্রতিষ্ঠিত শাহমখদুম মসজিদটি মুসলিম স্থাপত্যের অনন্য নিদর্শন। কষ্টি পাথরের পিলারের ওপর ১৫ গম্বুজ মসজিদ সকল সম্প্রদায়ের মাঝে ভক্তির ও সম্প্রীতির তীর্থস্থান। বিভিন্ন অঞ্চল থেকে দর্শনার্থীরা আসেন এখানে। মাজারের পাশেই অবস্থিত আরও দুটি স্থাপনা হচ্ছে শাহজাদপুর দরগা মসজিদ এবং শামসুদ্দিন তাবরিজির মাজার। বর্তমানে এটি বাংলাদেশ প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের তালিকাভুক্ত একটি প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপনা।

অবস্থান

এটি বাংলাদেশের সিরাজগঞ্জ জেলা সদর হতে ১৭ কিলোমিটার দূরে উপজেলা শাহজাদপুর হতে উত্তর দিকে করোতোয়া নদীর পাশে অবস্থিত।

[ সিরাজগঞ্জ শহর থেকে  শাহজাদপুর উপজেলা ১৭ কিলোমিটার। বাস বা সিএনজি যোগে শাহজাদপুর বাস স্ট্যান্ড নেমে সেখান থেকে রিক্সা বা অটোতে ২০-২৫ টাকা ভাড়া দিয়ে হযরত মখদুম মাজার ও মসজিদ যাওয়া যায়

ইতিহাস

কথিত আছে পারস্য থেকে হযরত শাহ দৌলা শহীদ  রহমতুল্লাহ ১২ শতকের শেষ প্রান্তে ১৯৯৩ থেকে ১৯৯৭ সালের মধ্যে সেখান থেকে ধর্ম প্রচারের উদ্দেশ্যে এই উপমহাদেশে আগমন করেন। তিনি বাংলায় প্রবেশ করে ইসলাম প্রচার শুরু করলে এই অঞ্চলের রাজা বিক্রম কেশরী সাথে যুদ্ধে জড়িয়ে পড়েন। কিন্তু কেশরীর সৈন্যবাহিনী প্রথম দুইবার পরাজিত লাভ করে।

ইতিহাস থেকে জানা যায় সর্বমোট ৩৩ বার রাজা বিক্রম কেশরী হযরত শাহ মখদুম কে আক্রমণ করেন। পরবর্তীতে নামাজ রত অবস্থায় তাঁকে অতর্কিত আক্রমণ করলে তিনি নিহত হন। তাঁর স্মরণার্থে এই মসজিদের নাম রাখা হয় হযরত মখদুম শাহ রহমত উল্লাহ মাজার ও মসজিদ। ১৫ গম্বুজ বিশিষ্ট মসজিদটি  দৈর্ঘ্যে প্রস্থে ১৪×১৩ মিটার। প্রতিটি গম্বুজের মাথায়  পিতলের নকশা চোখে পড়ার মতো।

কিভাবে যাবেন

রাজধানী ঢাকার কল্যাণপুর ও গাবতলী বাস টার্মিনাল হতে অথবা মহাখালী বাস টার্মিনাল হতে ঢাকা হতে বগুড়া গামী অথবা ঢাকা-রাজশাহী গামী যেকোনো বাসে চলে ভবন করতে পারবেন। এছাড়া ঢাকা থেকে সিরাজগঞ্জ শহরে বেশ কয়েকটি বাস যোগে আসতে পারেন।

বাস

ঢাকা লাইন পরিবহন (টেকনিক্যাল কাউন্টার মোবাইল-01879116916, সিরাজগঞ্জ মোবাইল-01879116912)
অভি ক্লাসিক  (টেকনিক্যাল মোবাইল-01715155939, সিরাজগঞ্জ মোবাইল-01715114180)
নন এসি ভাড়া ২৫০ টাকা
এছাড়া হানিফ, ন্যাশনাল,শ্যামলী, দেশ ট্রাভেলস  যোগে সিরাজগঞ্জ হাটিকুমরুল গোলচত্বর নেমে   যেতে পারেন।

ট্রেন

ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গগামী বেশ কয়েকটি ট্রেন সিরাজগঞ্জ মনসুর আলী স্টেশন, উল্লাপাড়ায় দাঁড়ায়। ঢাকা কমলাপুর ও এয়ারপোর্ট স্টেশন থেকে পুরো দিনেই সিরাজগঞ্জে ট্রেন পাওয়া যায়।

কোথায় থাকবেন
সিরাজগঞ্জ শহরে থাকার মতো বিভিন্ন মানের হোটেল রয়েছে।
হোটেল আরমানি, মুজিব সড়ক, মোবাইল-01711340519
হোটেল অনিক ,মুজিব সড়ক, মোবাইল-01712062061
হোটেল আল হামরা, স্বাধীনতা স্কয়ার, মোবাইল-01745629264
হোটেল উত্তর ভিলা, সিরাজগঞ্জ রোড চৌরাস্তা,মোবাইল-01712623180

শাহজাদপুর উপজেলা সদর থাকতে চাইলে ডাকবাংলো থাকতে পারেন সে জন্য আগে থেকে অনুমতি নিয়ে রাখতে হবে।

[ হোটেল গুলোর ভাড়া তিনশ থেকে তিন হাজার টাকার মধ্যে পড়বে]

Article Categories:
সিরাজগঞ্জ
banner

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।