মোজাফফর গার্ডেন এন্ড রিসোর্ট

 লিখেছেনঃ
  ডিসে. 25, 2019
  2011 Views
0 0

আবহমান বাংলার চিরচেনা রূপ আর আধুনিকতার সুপরিকল্পিত অবকাঠামোর সমন্বয়ে গড়ে ওঠা সাতক্ষীরা মোজাফফর গার্ডেন এন্ড রিসোর্ট। সাতক্ষীরা শহরের কুল ঘেসে অবস্থিত এই রিসোর্টটি। ব্যক্তিগত মালিকানায় এই রিসোর্টটি মন্টু সাহেবের বাগান বাড়ি নামেও পরিচিত। ১৯৮৯ সালে নিজ উদ্যোগে ১০০ একর জায়গা জুড়ে এই বাগানবাড়ি টি গড়ে তোলেন তিনি।

সাতক্ষীরা শহর থেকে ৪ কিলোমিটার দূরে এই বাগানবাড়িতে প্রতিনিয়ত পর্যটকদের আগমন ঘটে আর পর্যটকদের নানা কর্মকান্ডে সরব থাকে এই বাগানবাড়িটি। সাতক্ষীরা জেলায় যারা ঘুরতে আসেন তারা খুব সহজেই তাদের তালিকায় যোগ করতে পারেন এটি। সুন্দরবন থেকে এ রিসোর্টটি ৫০ কিলোমিটার পথ।

এই রিসোর্টে মোট ৮ টি লেক রয়েছে, লেকগুলোতে প্যাডেল বোট রাখা আছে নির্দিষ্ট ফি দিয়ে বোট গুলো ব্যবহার করতে পারবেন । এছাড়া দুটি মাছের একুরিয়াম আছে যাতে সামুদ্রিক নানা ধরনের মাছ সংগ্রহে আছে। পার্কের পশ্চিম দিকে একটি মিনি চিড়িয়াখানা তৈরি করা হয়েছে যাতে একটি কুমির, হরিণ ও ময়ূর এই চিড়িয়াখানা টির শোভাবর্ধন করে। ভ্রমণ পিপাসু মানুষদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে এই রিসোর্টটি। রাতে   জ্বলে ওঠে নানা রংবেরঙের আলো যাতে রিসোর্টটি অন্যমাত্রায় সৌন্দর্য ধারণ করে।

ছোটদের খেলার জন্য এখানে বেবি স্পট রয়েছে।পুরো রিসোর্টে হাঁটার জন্য  রাস্তা তৈরি করা আছে। নানা প্রকার পশুর ভাস্কর্য লক্ষ্য করা যায়। রাস্তার দুই পাশে ফুলের গাছ শোভাবর্ধন করে, ফুলের ঘ্রাণে পর্যটকদের মনে অন্য  এক অনুভূতি যোগ করে। এই রিসোর্টের প্রধান আকর্ষণ রাতে লেকের পাশে ক্যাম্পফায়ার। গ্রুপ নিয়ে গেলে আপনারা সহজেই ক্যাম্পে  করতে পারবেন। ক্যাম্পের জন্য নানা উপকরণ এখানেই পাবেন। ছুটির দিনগুলোতে ঘুরে আসতে পারেন এই রিসোর্ট থেকে। এখানে পরিবারসহ খুব আনন্দঘন কয়েকটা দিন কাটিয়ে আসতে পারেন অনায়াসে।

অবস্থান
এটি বাংলাদেশের খুলনা বিভাগের সাতক্ষীরা জেলা শহর থেকে চার কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।

খাওয়া

রিসোর্টের অভ্যন্তরে অবস্থিত রেস্টুরেন্টে খাওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। রিসোর্টের মাল্টি কুইজিন রেস্টুরেন্টে দেশিয় খাবারের পাশাপাশি পাওয়া যায় চাইনিজ, মোঘলাই ও অন্যান্য খাবারও। আছে বারবিকিউ এবং গার্ডেন ব্যাংকুয়েটের সুবিধাও।
যোগাযোগ
 মোজাফফর গার্ডেন এন্ড  রিসোর্ট বা মন্টু মিয়ার বাগান বাড়ি মোবাইল-০১৭১৯৭৬৯০০৯

কিভাবে যাবেন

বাস

ঢাকার কল্যাণপুর গাবতলী কমলাপুর টেকনিক্যাল থেকে সাতক্ষীরা যাওয়ার বাস পুরো দিনই পাওয়া যায়।

সোহাগ পরিবহন( কমলাপুর মোবাইল-01926696262, সাতক্ষীরা মোবাইল-01711420553)
কে লাইন পরিবহন( গাবতলী মোবাইল-01708434842, সাতক্ষীরা মোবাইল-01708434840, সাতক্ষীরা কালিগঞ্জ উপজেলা মোবাইল-01708434848, শ্যামনগর-01708434869)

একে ট্রাভেলস( কল্যাণপুর মোবাইল-01709964208,সাতক্ষীরা মোবাইল-01709964192)

নন এসি ৫৫০ টাকা এসি ১২০০ টাকা ভাড়া।

অনলাইনে টিকিট বুকিং এর জন্য, সহজ-16374
বাস বিডি-16460

ট্রেন

ঢাকা থেকে সাতক্ষীরা সরাসরি কোন ট্রেন নেই তবে ঢাকা থেকে খুলনা জেলায় ট্রেনে যেয়ে সেখান থেকে ৬০ কিলোমিটার দূরে বাস বা সিএনজি যোগে সাতক্ষীরা জেলায় যেতে পারে।

ঢাকা কমলাপুর থেকে খুলনা

সুন্দরবন প্রভাতী ছাঁড়ে 6:20 Am পৌঁছায় 4:20 pm

বন্ধ বুধবার

চিত্রা ছাঁড়ে 07:00 Pm পৌঁছায় 05:10 Am

বন্ধ মঙ্গলবার

সকল ট্রেনের ভাড়া ৫২৫ টাকা

খুলনা থেকে ঢাকা কমলাপুর

চিত্রা ছাঁড়ে 08:40 Am পৌঁছায় 06:20 Pm

সুন্দরবন ছাঁড়ে  8:30 Pm পৌঁছায় 05:40 Am

[ সাতক্ষীরা শহরের যেকোনো স্থান থেকে অটো সিএনজি বা রিক্সা যোগে চার কিলোমিটার দূরে মোজাফফর গার্ডেন অ্যান্ড রিসোর্ট যাওয়া যায়]

কোথায় থাকবেন

এখানে থাকার জন্য রয়েছে  সুযোগ-সুবিধা সমৃদ্ধ ৬টি কটেজঃ

  • রক্তকরবী,
  • দোলন-চাঁপা,
  • বাগান ভ্যালি,
  • সন্ধ্যা মালতী,
  • কনক চাঁপা এবং
  • হানিমুন কটেজ।

কটেজ ছাড়াও সেখানে ১৬টি শীততাপ নিয়ন্ত্রিত কক্ষসহ অনেকগুলো সাধারন কক্ষ আছে। হানিমুন কটেজের প্যাকেজ ১০,০০০ টাকা। অন্যান্য কটেজের রুমগুলোর জন্য দিনপ্রতি ৫০০ থেকে ২,৫০০ টাকা পর্যন্ত।

এছাড়া সাতক্ষীরা শহরে এসে থাকতে পারবেন।

সাতক্ষীরা শহরে থাকার মতো বিভিন্ন মানের হোটেল ও সার্কিট হাউজ রয়েছে।

টাইগার পয়েন্ট গেস্টহাউস মোবাইল-01720-510199
সুন্দরবন হোটেল মোবাইল-01710126624
হোটেল সৌদিয়া মোবাইল-01711450030
হোটেল টাইগার প্লাস মোবাইল-01774999000

[হোটেল গুলোর ভাড়া ৩০০ থেকে ২০০০ টাকার মধ্যে পড়বে]

Article Categories:
সাতক্ষীরা
banner

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।