সোনাবাড়িয়া মঠ মন্দির

 লিখেছেনঃ
  ডিসে. 30, 2019
  929 Views
0 0
পুরো সাতক্ষীরা জেলা জুড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে নানা ঐতিহাসিক নিদর্শন যার মধ্যে অন্যতম সোনাবাড়িয়া মন্দির। প্রায় ১৮ শতকের মাঝামাঝির দিকে নির্মিত এই মন্দির ইতিহাস ঐতিহ্য বহন করে। সরকারি পৃষ্ঠপোষকতার অভাবে ধীরেধীরে হারাচ্ছে এর ঐশ্বর্য। স্থানীয়দের কাছে এটি নানা নামে পরিচিত।
কারো কাছে শিব মন্দির, কেউ বলেন দুর্গা মন্দির,আবার কেউ নবরত্ন মন্দির বলে  চেনেন। দেখতে তিনতলা বিশিষ্ট হলেও এটি প্রায় ৬০ ফুট উঁচু একটি  মঠ। ইটের গায়ে পলেস্তার খসে পড়ছে প্রায়। সেসময়ের ইটের ওপর কারুকাজ লক্ষ্য করা যায়। প্রধান ফটকে চোখ রাখলেই অসমীয়া  লেখা চোখে পড়ে। ইতিহাস থেকে জানা যায় ১৭৬৭ খ্রিস্টাব্দে হরিরাম দাস নামক ব্যক্তি এটি নির্মাণ করেছিলেন।
স্থানীয়দের মধ্যে এই  নবরত্ন মন্দির নিয়ে নানা কথা প্রচলিত আছে কেউ কেউ বলেন এই মঠ  এক রাতে মাটি ফুঁড়ে বের হয়,যদিও এর সত্যতা পাওয়া যায়নি।  এই মন্দির বেশ কিছুদিন পরিত্যক্ত অবস্থায়  ছিল পরবর্তীতে উনিশ শতকের শেষের দিকে স্থানীয় হিন্দুরা এটিকে সংস্কার করে পূজা অর্চনা শুরু করে। মোট ৪৫ বিঘা জায়গার উপর এই মন্দির নির্মিত। নানা ফলের গাছ রয়েছে এখানে । মন্দিরের পাশেই ভাঙা বারটি ঘর রয়েছে। ঘরগুলোতে  ১২ টি শিব মন্দির ছিল যা চুরি হয়ে গেছে।
মন্দিরের সামনে একটি পুকুর রয়েছে। উত্তর-দক্ষিণে এই মন্দির ২০×১৫ ফুট। অনেকে মনে করেন এটি  বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের লোক তৈরি করেছিল  পরে সুবিধা না করতে পেরে এই অঞ্চল ত্যাগ করে। স্থানীয়দের দাবি সরকার এই মন্দিরের দিকে সুদৃষ্টি দিলে পর্যটকদের কাছে এটি দর্শনীয় স্থান হিসেবে পরিচিতি লাভ করবে ।
অবস্থান
এটা বাংলাদেশের সাতক্ষীরা জেলা শহর হতে ৩৪ কিলোমিটার দূরে উপজেলা কলারোয়া থেকে ৮ কিলোমিটার পথ সোনাবাড়িয়া গ্রামে অবস্থিত।
কিভাবে যাবেন

বাস

ঢাকার কল্যাণপুর গাবতলী কমলাপুর টেকনিক্যাল থেকে সাতক্ষীরা যাওয়ার বাস পুরো দিনই পাওয়া যায়।

সোহাগ পরিবহন( কমলাপুর মোবাইল-01926696262, সাতক্ষীরা মোবাইল-01711420553)
কে লাইন পরিবহন( গাবতলী মোবাইল-01708434842, সাতক্ষীরা মোবাইল-01708434840, সাতক্ষীরা কালিগঞ্জ উপজেলা মোবাইল-01708434848, শ্যামনগর-01708434869)

একে ট্রাভেলস( কল্যাণপুর মোবাইল-01709964208,সাতক্ষীরা মোবাইল-01709964192)

নন এসি ৫৫০ টাকা এসি ১২০০ টাকা ভাড়া।

অনলাইনে টিকিট বুকিং এর জন্য, সহজ-16374
বাস বিডি-16460

ট্রেন

ঢাকা থেকে সাতক্ষীরা সরাসরি কোন ট্রেন নেই তবে ঢাকা থেকে খুলনা জেলায় ট্রেনে যেয়ে সেখান থেকে ৬০ কিলোমিটার দূরে বাস বা সিএনজি যোগে সাতক্ষীরা জেলায় যেতে পারে।

ঢাকা কমলাপুর থেকে খুলনা

সুন্দরবন প্রভাতী ছাঁড়ে 6:20 Am পৌঁছায় 4:20 pm

বন্ধ বুধবার

চিত্রা ছাঁড়ে 07:00 Pm পৌঁছায় 05:10 Am

বন্ধ মঙ্গলবার

সকল ট্রেনের ভাড়া ৫২৫ টাকা

খুলনা থেকে ঢাকা কমলাপুর

চিত্রা ছাঁড়ে 08:40 Am পৌঁছায় 06:20 Pm

সুন্দরবন ছাঁড়ে  8:30 Pm পৌঁছায় 05:40 Am

[সাতক্ষীরা জেলা থেকে কলারোয়া উপজেলা ২৬ কিলোমিটার পথ। বাস বা সিএনজি যোগে এক ঘণ্টার মতো সময় লাগে আর ভাড়া পড়বে ৩০-৩৫ টাকার মতো। কলারোয়া উপজেলা সদর হতে সোনাবাড়িয়া মঠ মন্দির ৮ কিলোমিটার পথ। কলারোয়া উপজেলা সদর হতে সিএনজি অটো চার্জার ভ্যানযোগে সোনাবাড়িয়া মঠ মন্দির দেখতে যেতে পারেন]

কোথায় থাকবেন

[কলারোয়া উপজেলায় থাকার মত তেমন কোনো হোটেল নয় তবে এখানে সরকারি রেস্ট হাউজ উপজেলা ডাকবাংলো রয়েছে। থাকার জন্য উপজেলা ডাকবাংলা কর্তৃপক্ষের সাথে আগে থেকে যোগাযোগ করে আসতে হবে]

এছাড়া দিনে যেয়ে দিনেই সাতক্ষীরা শহরে এসে থাকতে পারবেন।

সাতক্ষীরা শহরে থাকার মতো বিভিন্ন মানের হোটেল ও সার্কিট হাউজ রয়েছে।
টাইগার পয়েন্ট গেস্টহাউস মোবাইল-01720-510199
সুন্দরবন হোটেল মোবাইল-01710126624
হোটেল সৌদিয়া মোবাইল-01711450030
হোটেল টাইগার প্লাস মোবাইল-01774999000

[হোটেল গুলোর ভাড়া ৩০০ থেকে ২০০০ টাকার মধ্যে পড়বে]

Article Categories:
সাতক্ষীরা
banner

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।